বীজপুর পুলিশের মানবিক প্রয়াস ,মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধকে উদ্ধার করে পরিবারের হাতে সপে দিল বীজপুর প্রশাসন

79

নিউজসুপার, তানিয়া কুন্ডু : -পুলিশ এই শব্দটি আসলেই কিছু মানুষের ভয়ে চোখ কপালে ওঠে তাতে সে দোষী হোক বা নাই।
পুলিশ মানেই উর্দিধারী লাঠি উঁচিয়ে আসে শাসন দুষ্টদের দমন করতে।
অথচ এই পুলিশ প্রশাসন আছে বলেই মানুষ শান্তিতে রাতের বেলা বলুন আর দৈনন্দিন জীবন যাই বলুননা কেন মানুষ স্বস্তিতে বসবাস করতে পারে।
বাড়ির অশান্তি কিংবা পাড়ার ঝামেলা সাথে সাথে হ্যালো পুলিশ।
বীজপুর থানায় নতুন ভারপ্রাপ্ত আই. সি ত্রিগুনা রায় কান পাতলেই শোনা যায় খুব নাকি কাজ প্রেমিক মানুষ ,প্রচার করা বা নিজেকে জাহির করাটা একেবারেই তার না পসন্দ।
থানায় অহরহ কিছু না কিছু ঘটনা তো ঘটেই থাকে আজকেও তা বিরত নয় ।প্রতিদিনকার মতো আজও থানায় চলছে প্রশাসনিক যথাযথ কাজ ,হঠাৎই বড়বাবুর (ত্রিগুনা রায়) নজরে আসে এক ব্যাক্তি থানার সামনে ইতি উতি ঘোরাঘুরি করছে থানার অভ্যন্তরেও নিষেধ সত্বেও ঢুকতে চাইছে,অপরদিকে আমজনতা তাকে উন্মাদ ভেবে তিরস্কার করে দিচ্ছে।বিষয়টি নজরে আসতেই থানার একজন সিভিক ভলান্টিয়ার কে দিয়ে বড়বাবু লোকটিকে নিয়ে ডাক পাঠান।তারপরই বিষয়টি বোঝার চেষ্টা করেন এবং ভদ্রলোকের বাড়ির লোকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেন।ঘটনার অভ্যন্তরে গিয়ে জানা যায় বৃদ্ধ সাময়িকভাবে মানসিক ভারসাম্যহীন। লকডাউন ঘোষণার আগেই সে এসেছিল তার এক নিকট আত্মীয়ের বাড়ি সেখান থেকেই কোনোপ্রকারে সে বাড়ি থেকে হাটা পথ ধরে চলে আসে বীজপুর।অতঃপর বীজপুর পুলিশের তৎপরতায় বৃদ্ধকে এইচ.বি.টাউন থেকে তার পরিবারের লোকজন এসে নিয়ে যায় এবং ধন্যবাদ জানায় বীজপুর পুলিশের এই কর্মকান্ডকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

9 + fifteen =