সমগ্র বীজপুরে তৃণমূলের কার্যালয় দখলমুক্ত করতে সক্রিয় ভূমিকায় পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি

70

নিউজসুপার, তানিয়া কুন্ডু:- এবারের ২০১৯ শের লোকসভা নির্বাচনের ফল অন্যান্যবারের তুলনায় একেবারে আলাদা পটভূমিতে পরিণত হয়েছে।সমগ্র ব্যারাকপুর বেল্টের আপামর সাধারণ মানুষ ভোট পরবর্তী বহু রাজনৈতিক সংঘর্ষ ও হিংসার মুখোমুখি হয়েছে।সেদিক থেকে তাকিয়ে বাদ নেই হালিশহর সহ সমগ্র বীজপুর। যেখানে দেখা যাচ্ছিল শাসকদলের প্রায় ঘরে নিঃশ্বাস ফেলছিল বিরোধীদল,সেদিক থেকে অনেকটাই ঘুরতে শুরু করে দিয়েছে ইতিমধ্যে বীজপুরের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট।
এককথায় যাকে বলা যায় তীব্র স্নায়ু যুদ্ধ শুরু হয়ে গিয়েছে একে একে সকল তৃণমূলের দখল করা কার্যালয় গুলি দখলমুক্ত করে আবারো পুরোনো ভূমিকায় ফিরতে শুরু করে দিয়েছে। ব্যতিক্রমী ভূমিকা গ্রহণ করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল ছাত্র পরিষদ-এর সভাপতি তথা বীজপুরের ভূমিপুত্র তৃণাঙ্কুর ভট্টাচার্যের হাত ধরে বীজপুর আবারও ভরে উঠলো “শিক্ষার প্রগতি-সংঘবদ্ধ জীবন-দেশপ্রেম” -এর পতাকায়। গতকাল সমগ্র বীজপুর জুড়ে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মীরা দলের বরিষ্ঠ কর্মীদের সাথে নিয়ে পতাকা লাগানো এবং তৃণমূলের দখল হওয়া ক্লাব এবং পার্টি অফিস পুনরুদ্ধার কর্মসূচির মধ্য দিয়ে সমগ্র বীজপুর জুড়ে সৃষ্টি হওয়া ভীত ও সন্ত্রস্ত বাতাবরণ দূরীকরণে সচেষ্ট ভূমিকায়। বীজপুর তৃণমূল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক ও সাধারণ সম্পাদক সুবোধ অধিকারী, হালিশহর পৌরসভার পৌরপ্রধান অংশুমান রায়সহ অন্যান্য নেতৃত্বদের সাথে নিয়ে দলকে ঘুরে দাঁড়াতে এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ শক্তি গড়ে তুলতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা গ্রহণ করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ। বিজেপির সন্ত্রাসের ভয়ে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ থেকে এবিভিপিতে যাওয়া বহু কর্মীরা আবার ফিরে আসছেন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের পতাকার তলায়।
এ বিষয়ে তৃনাঙ্কুর ভট্টাচার্যের মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন,”তৃণমূল দল মা- মাটি-মানুষের দল এবং সরকার বর্তমান রাজনৈতিক অচলাবস্থার জেরে যেভাবে সামাজিক জনজীবনকে একদা রাজনৈতিক দল ব্যাহত করার চেষ্টা চালাচ্ছিল তার দূরীকরণে আজ আমাদের এই প্রচেষ্টা, আশা করি আগামী দিনেও আমাদের এই প্রচেষ্টা সফলতা আনবে কারন আপামর জনসাধারনের পাশে থাকাটাই আমাদের শক্তি”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

two × 5 =